• বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ১৯ ফাল্গুন ১৪২৭  নিউইয়র্ক সময়: ০০:৫৩    ঢাকা সময়: ১০:৫৩

বাংলা ভাষায় কথা বলতে আমাদের অদ্ভূত হীনমন্যতা : কবির সুমন

দর্পণ কবীর, নিউইয়র্ক : ৭ সেপ্টেম্বর রাতে (নিউইয়র্ক সময় সকালে) বাংলা খেয়াল নিয়ে ফেসবুকে হাজির হয়েছিলেন বরেণ্য কণ্ঠশিল্পী কবির সুমন (আগের নাম-সুমন চট্টোপাধ্যায়)। তিনি বাংলা ভাষায় খেয়াল পরিবেশন করেন টানা এক ঘণ্টা। এই খেয়াল পরিবেশনের ফাঁকে ফাঁকে তিনি কথাও বলেছেন। কথা বলতে গিয়ে পশ্চিম বাংলার মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়কে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন বাংলা খেয়ালকে সরকারিভাবে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য। তিনি বলেছেন, হাজার বছরের ইতিহাসে এটাই প্রথম ঘটল। বাংলা খেয়াল কেউ গায় না। চেষ্টাও করে না। অথচ আমাদের বাংলা খেয়াল আছে, ঐতিহ্য আছে। শুধু আমাদের উদাসীনতা দেখি বাংলা খেয়ালের প্রতি। তিনি এ প্রসঙ্গে আরো বলেন, পশ্চিম বাংলায় দেখছি, আমাদের বাংলা ভাষার ওপর ভরসা নেই। কেউ এগিয়ে আসছে না বাংলা খেয়াল গাইবার জন্য। বাংলা ভাষা ও খেয়ালের প্রতি আমাদের অদ্ভুত হীনমন্যতা।

কবির সুমন বাংলা খেয়ালের সুর-লহরী ছড়িয়ে দেন এবং মাঝে মাঝে কথা বলেন ফেসবুক বন্ধুদের উদ্দেশে। তিনি রসিকতার ছলে বলেন, আমরা বাংলা ভাষার প্রতি উদাসীন, কে জানে- একদিন ট্রাম্পের পরিবারের কেউ এ ভাষায় কথা বলছে বা গান গাইছে। কে জানে-ইরানের হোসেনী রাফসান বাংলা ভাষার চর্চা করতে পারে। তিনি কটাক্ষ করে বলেন- আমরা যদি বাংলা ভাষা বা গানকে লালন না করি, তাহলে কি আয়াতুল্লাহ খোমেনী করবে? কবির সুমন বাংলা গান প্রসঙ্গে বলেন, আমাদের প্রাণে আজ গান নেই। শুধু নাম আছে। আমরা গান গাই না, নাম গাই। ফেসবুক,ইউটিউব, সিডি গাই। আমরা গান ও প্রেমকে দেশান্তরী করেছি।

ইংরেজি ভাষার আলোচিত ও বিতর্কিত উপন্যাসিক সালমান রুশদী কথাকে কোড করে বলেন, মানুষ তার গল্প নিয়ে পৃথিবীতে আসে, গল্পগুলো রেখে চলে যায়। আমাদের গানগুলোও একেকটি গল্প। এই গল্পগুলো আমরা পড়ি না, অন্তরে ধারণ করি না। তিনি করোনা ভাইরাস প্রসঙ্গে বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একটি বক্তব্যকেও উল্লেখ করে বলেন- বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বলতেন, ভয় পাইলেই ভয়। হান্দাইয়া দিলে কীসের ভয়? আমাদের করোনাকে হান্দাইয়া দিতে হবে। ভয় পাওয়া ছাড়তে হবে। এতো মাস্ক পড়ে থাকতে হবে কেন?  

অনুষ্ঠানে কবির সুমনের পরিবেশিত বাংলা খেয়ালের প্রথম কয়েকটি লাইন ছিল-

কাঙরের স্মৃতি স্রোত বয়ে আনে কাল

অন্তজ বাংলার কলিজার-গান

আমি সেই চন্ডাল মরদ তোমার

আমার ঘরনী তুমি মেয়ে বাংলার।

দেশকণ্ঠ/দক

 

AD by Deshkontho
AD by Deshkontho
আরও সংবাদ
×

আমাদের কথা: ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বব্যাপী অনলাইন মিডিয়া। গতি ও প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে মানুষও তথ্যানুসন্ধানে নির্ভরযোগ্য মাধ্যম হিসেবে বেছে নিয়েছে অনলাইন। যতই দিন যাচ্ছে, অনলাইন মিডিয়ার সঙ্গে মানুষের সর্ম্পক তত নিবিড় হচ্ছে। দেশ, রাষ্ট্র, সীমান্ত, স্থল-জল, আকাশপথ ছাড়িয়ে যেকোনো স্থান থেকে ‘অনলাইন মিডিয়া’ এখন আর আলাদা কিছু নয়। পৃথিবীর যে প্রান্তে যাই ঘটুক, তা আর অজানা থাকছে না। বলা যায় অনলাইন নেটওয়ার্ক এক অবিচ্ছিন্ন মিডিয়া ভুবন গড়ে তুলে এগিয়ে নিচ্ছে মানব সভ্যতার জয়যাত্রাকে। আমরা সেই পথের সারথি হতে চাই। ‘দেশকণ্ঠ’ সংবাদ পরিবেশনে পেশাদারিত্বকে সমধিক গুরুত্ব দিয়ে কাজ করতে বদ্ধপরির। আমাদের সংবাদের প্রধান ফোকাস পয়েন্ট সারাবিশ্বের বাঙালির যাপিত জীবনের চালচিত্র। বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রসহ আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলের সংবাদও আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। আমরা একঝাক ঋদ্ধ মিডিয়া প্রতিনিধি যুক্ত থাকছি দেশকণ্ঠের সঙ্গে।