• সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ১৮ শ্রাবণ ১৪২৮  নিউইয়র্ক সময়: ২০:১১    ঢাকা সময়: ০৬:১১

অনলাইনে ২৭৩৫ কোটি টাকার পশু বিক্রি

দেশকণ্ঠ প্রতিবেদন :  মহামারী করোনাভাইরাসের চলমান পরিস্থিতির কারণে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে সরাসরি হাটের পাশাপাশি এবার অনলাইনেও ডিজিটাল হাটের মাধ্যমে পশু ক্রয়-বিক্রয়ের ব্যবস্থা রেখেছিল সরকার। এই ডিজিটাল হাটে গত ১৯ দিনে ৩ লাখ ৮৭ হাজার ৫৭৯টি পশু বিক্রি হয়েছে, যার বাজারমূল্য ২ হাজার ৭৩৫ কোটি ১১ লাখ ১৫ হাজার ৬৭৮ টাকা।
 
গতকাল মঙ্গলবার (২০ জুলাই) পর্যন্ত অনলাইনে পশু বিক্রির হিসাব তুলে ধরে প্রাণিসম্পদ অধিদফতর এসব তথ্য জানায়। প্রাণিসম্পদ অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে কোরবানির পশু কেনাবেচার জন্য অনলাইন প্লাটফর্মের সংখ্যা ১ হাজার ৭৬৮টি, যার মধ্যে সরকারি উদ্যোগে ৬০২টি আর বেসরকারি উদ্যোগে ১ হাজার ১৬৬টি পরিচালিত হচ্ছে। এসব অনলাইন বাজারে গেল ১৯ দিনে ১৮ লাখ ১২ হাজার ২০২টি কোরবানিযোগ্য পশুর তথ্য আপলোড করা হয়েছে।
 
এ দিন ডিজিটাল হাটে কোরবানির পশু বিক্রি হয়েছে ৩৮ হাজার ১৫১টি। এর মধ্যে গরু ও মহিষের সংখ্যা ২৯ হাজার ১৪৪টি এবং ছাগল ও ভেড়ার সংখ্যা ৯ হাজার ৭টি। ডিজিটাল হাটে বিক্রিত কোরবানির পশুর মধ্যে গরু ও মহিষের সংখ্যা ২ লাখ ৯৬ হাজার ৭১০টি এবং ছাগল ও ভেড়া মিলিয়ে ৯০ হাজার ৮৬৯টি। 
 
ঢাকা বিভাগে ৫৮ হাজার ২৪৮টি গরু-মহিষ এবং ৪ হাজার ৭৯৪টি ছাগল-ভেড়া, চট্টগ্রাম বিভাগে ১ লাখ ৩৩ হাজার ৪০৬টি গরু-মহিষ এবং ২৫ হাজার ৮০৫টি ছাগল-ভেড়া, রাজশাহী বিভাগে ৩৬ হাজার ৫৫৫টি গরু-মহিষ এবং ২২ হাজার ৩৯৫টি ছাগল-ভেড়া, খুলনা বিভাগে ১৫ হাজার ৩৭৭টি গরু-মহিষ এবং ১০ হাজার ৫৮৪টি ছাগল-ভেড়া, বরিশাল বিভাগে ৩ হাজার ৬৬৬টি গরু-মহিষ এবং ৫৯৫টি ছাগল-ভেড়া, সিলেট বিভাগে ৫ হাজার ১৯৪টি গরু-মহিষ এবং ৯৫১টি ছাগল-ভেড়া, রংপুর বিভাগে ৪১ হাজার ৯৯০টি গরু-মহিষ এবং ২৫ হাজার ৫৯২টি ছাগল-ভেড়া, ময়মনসিংহ বিভাগে ২ হাজার ২৭৪টি গরু-মহিষ এবং ১৫৩টি ছাগল-ভেড়া অনলাইনে বিক্রি হয়েছে।
 
এদিকে, আইসিটি বিভাগ, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) ও ই-ক্যাব যৌথ উদ্যোগে অনলাইনে অয়োজন করে কোরবানি পশুর ডিজিটাল হাট। এ হাটেও কোরবানির পশু বিক্রি হয়েছে, যা সন্তোষজনক বলে মনে করছেন এর আয়োজকরা। প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের তথ্যমতে, চলতি বছর মাঠ পর্যায়ের তথ্য অনুযায়ী ৪৫ লাখ ৪৭ হাজার গরু-মহিষ, ৭৩ লাখ ৬৫ হাজার ছাগল-ভেড়া এবং অন্যান্য ৪ হাজার ৭৬৫ পশুসহ মোট ১ কোটি ১৯ লাখ ১৬ হাজার ৭৬৫টি কোরবানিযোগ্য গবাদিপশু রয়েছে। ২০২০ সালে এর সংখ্যা ছিল ১ কোটি ১৮ লাখ ৯৭ হাজার ৫০০টি। এর মধ্যে প্রায় ৯৪ লাখ ৫০ হাজার ২৬৩টি পশু কোরবানি করা হয়েছিল।
 
প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের পরিচালক (সম্প্রসারণ) দেবাশীষ দাশ জানান, মোট ১৯ দিন অনলাইন পশুর হাট পরিচালিত হয়েছে। গতকালের পর থেকে কোরবানির পশুকে কেন্দ্র করে আর এই অনলাইন কার্যক্রম থাকছে না বলেও জানান তিনি। উল্লেখ্য, ত ২ জুলাই থেকে জেলাভিত্তিক অ্যাপ, ফেসবুক পেজ ও বিভিন্ন অনলাইন সাইটের মাধ্যমে পশু বিক্রি শুরুর উদ্যোগ নেয় প্রাণিসম্পদ অধিদফতর। আর ৪ জুলাই ডিজিটাল হাট নামে আরেকটি প্ল্যাটফর্মও উদ্বোধন করা হয়।
দেশকণ্ঠ/অআ

  মন্তব্য করুন
AD by Deshkontho
AD by Deshkontho
আরও সংবাদ
×

আমাদের কথা: ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বব্যাপী অনলাইন মিডিয়া। গতি ও প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে মানুষও তথ্যানুসন্ধানে নির্ভরযোগ্য মাধ্যম হিসেবে বেছে নিয়েছে অনলাইন। যতই দিন যাচ্ছে, অনলাইন মিডিয়ার সঙ্গে মানুষের সর্ম্পক তত নিবিড় হচ্ছে। দেশ, রাষ্ট্র, সীমান্ত, স্থল-জল, আকাশপথ ছাড়িয়ে যেকোনো স্থান থেকে ‘অনলাইন মিডিয়া’ এখন আর আলাদা কিছু নয়। পৃথিবীর যে প্রান্তে যাই ঘটুক, তা আর অজানা থাকছে না। বলা যায় অনলাইন নেটওয়ার্ক এক অবিচ্ছিন্ন মিডিয়া ভুবন গড়ে তুলে এগিয়ে নিচ্ছে মানব সভ্যতার জয়যাত্রাকে। আমরা সেই পথের সারথি হতে চাই। ‘দেশকণ্ঠ’ সংবাদ পরিবেশনে পেশাদারিত্বকে সমধিক গুরুত্ব দিয়ে কাজ করতে বদ্ধপরির। আমাদের সংবাদের প্রধান ফোকাস পয়েন্ট সারাবিশ্বের বাঙালির যাপিত জীবনের চালচিত্র। বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রসহ আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলের সংবাদও আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। আমরা একঝাক ঋদ্ধ মিডিয়া প্রতিনিধি যুক্ত থাকছি দেশকণ্ঠের সঙ্গে।