• মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮  নিউইয়র্ক সময়: ১৮:২৯    ঢাকা সময়: ০৪:২৯

প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণ বিতরণ নিশ্চিত করতে ব্যাংকার-উদ্যোক্তা দূরত্ব কমানোর পরামর্শ

দেশকণ্ঠ প্রতিবেদন : করোনাভাইরাসের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের জন্য সরকারের প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণ দ্রুত বিতরণ নিশ্চিত করতে ব্যাংকার-উদ্যোক্তা দূরত্ব কমানোর পরামর্শ দিয়েছেন এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মোঃ মফিজুর রহমান। বুধবার রংপুরে এসএমই ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আয়োজিত এসএমই উদ্যোক্তা-ব্যাংকার ঋণ ম্যাচমেকিং অনুষ্ঠানে তিনি এ পরামর্শ দেন। তিনি আরও বলেন, প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় সহজে ঋণ পাওয়ার জন্য উদ্যোক্তাদের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ব্যাংকে সরবরাহ করা প্রয়োজন। 
 
ফাউন্ডেশনের উপ-মহাব্যবস্থাপক সুমন চন্দ্র সাহার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন ও রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক মো. বাবর আলী প্রমূখ বক্তব্য রাখেন। মফিজুর রহমান বলেন, ঋণ পাওয়ার শর্ত ও তথ্যসমূহ ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন শাখায় প্রদর্শন করা হলে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের জন্য তা সহায়ক হয়। এছাড়া প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণ বিতরণে এসএমই ফাউন্ডেশনের নীতিমালা সম্পর্কেও উদ্যোক্তা-ব্যাংকারদের আরও সচেতন করে তোলার আহবান জানান তিনি। তিনি আরও বলেন, করোনাভাইরাসের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে সিএমএসএমই খাতের জন্য সরকারের প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় ২০ হাজার কোটি টাকার মধ্যে ঋণ পাওয়া নারী-উদ্যোক্তার হার শতকরা ৬ ভাগের নিচে হলেও এসএমই ফাউন্ডেশনের বিতরণকৃত ঋণের ৩০ ভাগের বেশি পাচ্ছেন নারী-উদ্যোক্তারা।
 
উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে সরকারের দ্বিতীয় দফা প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় চলতি অর্থবছরে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের ২০০ কোটি টাকা ঋণ বিতরণের সেপ্টেম্বর ২০২১-এ ১৯টি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তি সই করে ফাউন্ডেশন। ঋণের সুদের হার ৪ শতাংশ। একজন উদ্যোক্তা সর্বনি¤œ ১ লাখ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ পাবেন। ২৫ লাখ টাকা পর্যন্ত জামানতবিহীন ঋণ পাবেন।
দেশকণ্ঠ/আসো

  মন্তব্য করুন
AD by Deshkontho
AD by Deshkontho
আরও সংবাদ
×

আমাদের কথা: ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বব্যাপী অনলাইন মিডিয়া। গতি ও প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে মানুষও তথ্যানুসন্ধানে নির্ভরযোগ্য মাধ্যম হিসেবে বেছে নিয়েছে অনলাইন। যতই দিন যাচ্ছে, অনলাইন মিডিয়ার সঙ্গে মানুষের সর্ম্পক তত নিবিড় হচ্ছে। দেশ, রাষ্ট্র, সীমান্ত, স্থল-জল, আকাশপথ ছাড়িয়ে যেকোনো স্থান থেকে ‘অনলাইন মিডিয়া’ এখন আর আলাদা কিছু নয়। পৃথিবীর যে প্রান্তে যাই ঘটুক, তা আর অজানা থাকছে না। বলা যায় অনলাইন নেটওয়ার্ক এক অবিচ্ছিন্ন মিডিয়া ভুবন গড়ে তুলে এগিয়ে নিচ্ছে মানব সভ্যতার জয়যাত্রাকে। আমরা সেই পথের সারথি হতে চাই। ‘দেশকণ্ঠ’ সংবাদ পরিবেশনে পেশাদারিত্বকে সমধিক গুরুত্ব দিয়ে কাজ করতে বদ্ধপরির। আমাদের সংবাদের প্রধান ফোকাস পয়েন্ট সারাবিশ্বের বাঙালির যাপিত জীবনের চালচিত্র। বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রসহ আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলের সংবাদও আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। আমরা একঝাক ঋদ্ধ মিডিয়া প্রতিনিধি যুক্ত থাকছি দেশকণ্ঠের সঙ্গে।