• মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮  নিউইয়র্ক সময়: ১৮:৪০    ঢাকা সময়: ০৪:৪০

কমেছে তামাক সেবনকারীর সংখ্যা কমেছে

দেশকণ্ঠ প্রতিবেদন : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা ডব্লিওএইচও জানিয়েছে বিশ্বব্যাপী ধূমপানসহ নানা উপায়ে তামাক সেবনকারীর সংখ্যা গত প্রায় ৭ বছরে ২ কোটি কমেছে। তামাকের ব্যবহার নিয়ে বুধবার সংস্থাটির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়ে বলা হয়েছে বিশ্বের ১৩০ কোটি মানুষ এখন তামাকজাত পণ্য ব্যবহার করেন। ২০১৫ সালে এ সংখ্যা ছিল ১৩২ কোটি। এতে আশা প্রকাশ করা হয়েছে যে ভবিষ্যতে তামাক ব্যবহারকারীর সংখ্যা আরও কমে ২০২৫ সাল নাগাদ ১২৭ কোটিতে নেমে আসবে। ডব্লিওএইচও বলেছে ২০১০ থেকে ২০২৫ সালের মধ্যে তামাকের ব্যবহার ৩০ শতাংশ কমিয়ে আনার বিষয়ে দুই বছর আগে যেখানে ৩০ টি দেশ তালিকাভুক্ত হয়েছিল এখন সেখানে বিশ্বের ৬০টি দেশ স্বেচ্ছায় এ কাজে এগিয়ে এসেছে।
 
তামাক নিয়ন্ত্রণে কার্যকর এবং সমন্বিত ‘ডব্লিওএইচও ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশন অন টোব্যাকো কন্ট্রোল’ নীতির মাধ্যমে লাখো মানুষের জীবন রক্ষা করা গেছে বলে উল্লেখ করে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে তামাকজনিত মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এটা বড় অর্জন। ডব্লিওএইচওর প্রতিবেদনে ধূমপানে ব্যবহৃত তামাক যেমন সিগারেট, পাইপ, সিগার, ওয়াটার পাইপ, চুরুট, বিড়ি, তামাকজাত পণ্য অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ডব্লিওএইচও জানায় ২০২০ সালে বিশ্বের জনসংখ্যার ২২.৩ শতাংশ তামাকজাত পণ্য ব্যবহার করেছে । ২০২০ সালে তামাক সেবনকারী নারীর সংখ্যা ছিল ২৩ কোটি ১০ লাখ যাদের মধ্যে ৫৫ থেকে ৬৪ বছর বয়সী নারীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।
 
প্রতিবেদনে বলা হয় বেশিরভাগ দেশেই কম বয়সীদের কাছে বিক্রি নিষিদ্ধ হলেও বিশ্বের প্রায় ৩ কোটি ৮০ লাখ শিশু তামাকজাত পণ্য ব্যবহার করছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়। এসব শিশুর বয়স ১৩ থেকে ১৫ বছর বয়সের মধ্যে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী তামাক ব্যবহারের কারণে প্রতিবছর বিশ্বে ৮০ লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু হয় যাদের মধ্যে প্রায় ১২ লাখ মানুষ রয়েছেন যারা সরাসরি ধূমপান না করেও ধূমপায়ীদের সংস্পর্শে থাকার কারণে মারা যাচ্ছেন। ডব্লিউএইচওর প্রধান তেদ্রোস আধানম গেব্রেইসাস প্রতিবেদন প্রকাশ উপলক্ষে বলেন প্রতি বছর তামাক ব্যবহারকারীদের সংখ্যা কমতে দেখা খুবই উৎসাহ জনক। বিশ্বকে তামাক মুক্ত করার যাত্রায় এখনও অনেক দূর যেতে হবে হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
 
বাংলাদেশে তামাকের ব্যবহার ও এ সংক্রান্ত অন্যান্য প্রসঙ্গে মাদকদ্রব্য ও নেশা রোধ সংস্থা বা মানস এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ডা. অরূপ রতন চৌধুরীর কাছে ভয়েস অফ অ্যামেরিকার পক্ষে জানতে চাইলে তিনি বলেন বাংলাদেশে তামাক এবং তামাক জাতিয় পণ্যের দাম সস্তা হওয়ায় এর ব্যবহারও অনেক বেশি । বিশেষ করে বিনোদনের উপায় হিসেবে তামাক জাত পণ্য সেটা ধূমপান হোক কিংবা জর্দা, দোক্তা, গুল এর মত অন্যান্য তামাকের ব্যবহার নিন্ম আয়ের মানুষের মধ্যে বেশী বলে তিনি উল্লেখ করেন।
 
২০১৭ সালে গ্লোবাল অ্যাডাল্ট টোব্যাকোর এক জরিপের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বলেন বাংলাদেশে ৩ কোটি ৭৮ লাখ মানুষ বিভিন্ন উপায়ে তামাকের ব্যাবহার করে থাকেন যা দেশের মোট জনসংখ্যার ৩৫.৩ শতাংশ। তিনি বলেন বাংলাদেশে প্রতি বছরর কমপক্ষে ১ লাখ ৬১ লাখ মানুষ তামাক জাত পণ্য গ্রহণের কারণে ক্যান্সার ও অন্যান্য রোগে মারা যাচ্ছেন। ডা. অরূপ রতন চৌধুরী বলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং ক্যান্সার সোসাইটি তামাকজাত পণ্য ব্যবহারের ফলে মৃত্যু এবং অসুস্থতার কারণে দেশের অর্থনীতির ওপর এর প্রভাবের বিষয়ে ২০১৮ সালে যৌথভাবে যে গবেষণা পরিচালনা করেছিল তাতে দেখা যাচ্ছে এর ফলে যে আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে তার পরিমাণ ৩০,৫৭০ কোটি টাকা যা দেশের মোট জিডিপির প্রায় ১.৪ শতাংশ।
 
ডা. অরূপ রতন চৌধুরী বলেন আশার কথা এই যে বাংলাদেশ সরকার ইতিমধ্যেই ঘোষণা দিয়েছে ২০৪০ সালের মধ্যে দেশকে তামাক মুক্ত করা হবে এবং লক্ষ্য অর্জনে সরকার ২০১৩ সালে ২০০৫ সালের তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনকে যুগোপযুগি করেছে। তামাক মুক্ত দেশ গঠনে এখন প্রয়োজন এ আইনের যথাযথ প্রয়োগ এবং এ লক্ষ্য অর্জনে সরকারে স্বাস্থ্য, যুব, নারী ও শিশু মন্ত্রণালয় সহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় সমূহকে একযোগে কাজ করতে হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
দেশকণ্ঠ/আসো

  মন্তব্য করুন
AD by Deshkontho
AD by Deshkontho
আরও সংবাদ
×

আমাদের কথা: ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বব্যাপী অনলাইন মিডিয়া। গতি ও প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে মানুষও তথ্যানুসন্ধানে নির্ভরযোগ্য মাধ্যম হিসেবে বেছে নিয়েছে অনলাইন। যতই দিন যাচ্ছে, অনলাইন মিডিয়ার সঙ্গে মানুষের সর্ম্পক তত নিবিড় হচ্ছে। দেশ, রাষ্ট্র, সীমান্ত, স্থল-জল, আকাশপথ ছাড়িয়ে যেকোনো স্থান থেকে ‘অনলাইন মিডিয়া’ এখন আর আলাদা কিছু নয়। পৃথিবীর যে প্রান্তে যাই ঘটুক, তা আর অজানা থাকছে না। বলা যায় অনলাইন নেটওয়ার্ক এক অবিচ্ছিন্ন মিডিয়া ভুবন গড়ে তুলে এগিয়ে নিচ্ছে মানব সভ্যতার জয়যাত্রাকে। আমরা সেই পথের সারথি হতে চাই। ‘দেশকণ্ঠ’ সংবাদ পরিবেশনে পেশাদারিত্বকে সমধিক গুরুত্ব দিয়ে কাজ করতে বদ্ধপরির। আমাদের সংবাদের প্রধান ফোকাস পয়েন্ট সারাবিশ্বের বাঙালির যাপিত জীবনের চালচিত্র। বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রসহ আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলের সংবাদও আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। আমরা একঝাক ঋদ্ধ মিডিয়া প্রতিনিধি যুক্ত থাকছি দেশকণ্ঠের সঙ্গে।