• মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮  নিউইয়র্ক সময়: ২০:২১    ঢাকা সময়: ০৬:২১

১০৪ বছর বয়সে লিখতে শিখলেন কুট্টিয়াম্মা

দেশকণ্ঠ ডেস্ক : ভারতের কেরালার কোট্টায়াম জেলার কুট্টিয়াম্মা প্রমাণ করেছেন, বয়স সত্যিই সংখ্যামাত্র। ১০৪বছর বয়সে কেরালা রাজ্য সাক্ষরতা মিশন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন তিনি। বয়স শুনে চমকে উঠছেন সকলেই। বেঁচে থাকলেও এই বয়সে বার্ধক্যের ভারে নুইয়ে যান বেশির ভাগ মানুষই। কিন্তু কুট্টিয়াম্মা যেন এসবের ঊর্ধ্বে। তিনি জীবনের নতুন অধ্যায় শুরুই করলেন এই বয়সে এসে।
 
১০৪ বছর বয়সি কুট্টিয়াম্মা স্কুলের গণ্ডিই পার করেননি ছোটবেলায়। তবে তিনি পড়তে জানতেন। লিখতে পারতেন না। তাই সাক্ষরতা পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে গিয়েই প্রথমে কাগজ-কলমের সঙ্গে পরিচিত হন তিনি। ধীরে ধীরে লিখতে শিখলেন। কুট্টিয়াম্মার বাড়িতে সকাল ও সন্ধ্যার শিফটে ক্লাস হতো। শতবর্ষী এই বৃদ্ধাকে উৎসাহও দিয়েছেন সকলে। আর তারই ফলাফল হাতেনাতে। সম্প্রতি কোট্টায়ামের আয়রাকুন্নান পঞ্চায়েতের তরফে সাক্ষরতা পরীক্ষা পরিচালনা করা হয়। সেই পরীক্ষাতেই বসেন তিনি। তাতে তিনি শুধু যে পাশই করেছেন তাই নয়, রেকর্ড নম্বরও পেয়েছেন। ১০০-র মধ্যে ৮৯!
 
কেরালার শিক্ষামন্ত্রী ভি শিবাকুট্টি নিজে কুট্টিয়াম্মাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। তিনি টুইট করে লেখেন, "কোট্টায়ামের ১০৪ বছর বয়সী কুট্টিয়াম্মা কেরালা রাজ্য সাক্ষরতা মিশন পরীক্ষায় ১০০-এর মধ্যে ৮৯ নম্বর পেয়েছেন। কুট্টিয়াম্মা দেখিয়েছেন লেখা-পড়ার কোনো বয়স হয় না। শ্রদ্ধা এবং আন্তরিক ভালবাসার সঙ্গে আমি তাকে এবং অন্যান্য নতুন শিক্ষার্থীদের শুভকামনা জানাই।" এই শুভেচ্ছা বার্তার পাশাপাশি তিনি কুট্টিয়াম্মার একটি ছবিও টুইট করেছেন।
 
ভারতের মধ্যে সাক্ষরতার হার সবচেয়ে বেশি এই কেরলেই। কেরল রাজ্য সাক্ষরতা মিশন অথরিটি রাজ্যের সকল নাগরিকের জন্য সাক্ষরতা, শিক্ষার প্রচার করে এই গৌরব এনেছে রাজ্যে।
দেশকণ্ঠ/আসো

  মন্তব্য করুন
AD by Deshkontho
AD by Deshkontho
আরও সংবাদ
×

আমাদের কথা: ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বব্যাপী অনলাইন মিডিয়া। গতি ও প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে মানুষও তথ্যানুসন্ধানে নির্ভরযোগ্য মাধ্যম হিসেবে বেছে নিয়েছে অনলাইন। যতই দিন যাচ্ছে, অনলাইন মিডিয়ার সঙ্গে মানুষের সর্ম্পক তত নিবিড় হচ্ছে। দেশ, রাষ্ট্র, সীমান্ত, স্থল-জল, আকাশপথ ছাড়িয়ে যেকোনো স্থান থেকে ‘অনলাইন মিডিয়া’ এখন আর আলাদা কিছু নয়। পৃথিবীর যে প্রান্তে যাই ঘটুক, তা আর অজানা থাকছে না। বলা যায় অনলাইন নেটওয়ার্ক এক অবিচ্ছিন্ন মিডিয়া ভুবন গড়ে তুলে এগিয়ে নিচ্ছে মানব সভ্যতার জয়যাত্রাকে। আমরা সেই পথের সারথি হতে চাই। ‘দেশকণ্ঠ’ সংবাদ পরিবেশনে পেশাদারিত্বকে সমধিক গুরুত্ব দিয়ে কাজ করতে বদ্ধপরির। আমাদের সংবাদের প্রধান ফোকাস পয়েন্ট সারাবিশ্বের বাঙালির যাপিত জীবনের চালচিত্র। বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রসহ আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলের সংবাদও আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। আমরা একঝাক ঋদ্ধ মিডিয়া প্রতিনিধি যুক্ত থাকছি দেশকণ্ঠের সঙ্গে।